ছিন্ন হৃদয়
প্রকাশিত: জানুয়ারী ১৫, ২০১৮
লেখকঃ vickycherry05

 59 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ vickycherry05

Writer: Sharmin Khanom

চারদিকে শুনশান নিরবতা। নিজের নিশ্বাসের শব্দটাকে বেশ ভয়ংকর এক অচেনা আওয়াজ মনে হচ্ছে । জনমানবশূন্য এক অদ্ভূত রাস্তার মাঝে দাড়িয়ে আছে নিতু। রাতের পৃথিবীটা তার কাছে বড্ড অচেনা লাগছে। নিজেকে এই পৃথিবীর অপরিচিত এক আগন্তুক মনে হচ্ছে তার। অসম্ভব রকম ভয়াবহ কষ্টে ধরে আসছে তার গলা। মানুষের দু:খ গুলো ভারি অদ্ভূত। বুকের গভীরে সযত্নে লুক্কায়িত একান্ত দুঃখগাথা। সারাটা জীবন জুরেও মানুষ জানেনা কার কাছে বলবে সে তার দু:খ কথা!কে বুঝবে তার দু:খ!

দীর্ঘ সময় পর হঠাৎ আবিষ্কার করল তার গলা বেয়ে নেমে আসছে উষ্ণ জলের ধারা। সে কাদছে। তার এই কান্না দীর্ঘ দিনের পরিচিত এক বালকের জন্য। যে কিছুক্ষণ পূর্বেও তার পাশে বসে ছিল। হাজার অপমানকে যে মজার ছলে উড়িয়ে দিয়েই তার যাত্রা সঙ্গী হয়েছিল। সে আর নেই!
সে হারিয়ে গেছে জীবন থেকে। শত চাইলেও আর তাকে খুজে পাওয়া যাবে না। আমাদের মাঝে দেয়াল যে এই শুবিশাল পৃথিবী। সে ত্যাগ করেছে এই সুন্দরতর পৃথিবীর মায়াজাল। সে আর আমার বিরক্তির কারন হবে না। ভালবাসি ভালবাসি বলে আর সে আমায় রাগাবে না। রাতের যাত্রাপথে আমার বিপদের আশঙ্কায় পথসঙ্গী হতে আর আসবে না সে। বিদায় নিয়ে চলে গিয়ে বাস ছেড়ে যাবার সঙ্গে- সঙ্গেই পাশের সিটে হঠাৎ করে আর সে বসবে না। ভাবতে ভাবতে… হুহু করে কেঁদে উঠল নিতু।
আজ নিজেকে বড্ড একা মনে হচ্চে নিতুর। রাত নয়টায় যে মানুষটা তার পাশে বসে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা করেছিল এখন সে নিথর হয়ে পরে আছে।
নিতুকে সিলেট পৌঁছে দিয়ে আবার ময়মনসিংহে ফিরার কথা ছিল সাজিদের। ঈদের ছুটিতে টানা আট দিন নিতু কে না দেখে কি করে থাকবে? সে কথায় বার বার বলছিল সাজিদ। এখন…………… । । । । । । । । ।
হঠাৎ ভয়াবহ দুর্ঘটনায় থেমে গেল সাজিদের দুশ্চিন্তা । চলে গেল চির শান্তির নিদ্রায়। আর বাড়িয়ে দিল নিতুর নির্ঘুম রাতের সংখ্যা। নিতুর নিজেকে বড্ড অপরাধী মনে হচ্ছে। নিতু হচ্ছে পৃথিবীর সেই সব অসহায় নারীদের একজন। যারা কেবল তাদের রাগ, ক্ষোভ, ক্রোধই প্রকাশ করে। কিন্তুু কখনই তাদের ভালবাসা প্রকাশ করে না। নারীর সাথে কোমলতার সন্ধি থাকলেও সেই সকল নারীদের বাইরের দিকটা বড্ড কঠিন খটখটে। তাই সবাই কেবল তাদের সেই কঠিনতাটাই দেখে। বুকের ভিতর লুকিয়ে থাকা গভীর ভালবাসাটা আর কেউ দেখে না। হয়ত সাজিদ দেখেছিল নিতুর গভীরে লুকোনো ভালবাসাটা। সেই ভেবে নিতু চোখ বন্ধ করে বসে পরল। তার কপাল গড়িয়ে পরছে রক্ত। যদিও সেই রক্ত তার হৃদয়ের ক্ষরিত রক্তের তুলনায় কিছুই নয়। তাই চাঁদের নরম আলোর মধ্যেও ফর্সা মায়াবী অপরূপ মুখে পরেছে বিচ্ছেদের ছায়া। এ ছায়া ক্ষনিকের নয়। এ ছায়া আষ্টেপৃষ্টে লেগে থাকবে জীবনভর। বয়ে বেড়াবে ছিন্ন হৃদয়……………..

সম্পর্কিত পোস্ট

মা

মা

ইশু মণি বাহিরে ঝুম বৃষ্টি হচ্ছে তাসবিহ্ ঘরের দরজা জানালা সব বন্ধ করে ঘরের এক কোণে গুটিসুটি মেরে বসে আছে।টিনের চালে বৃষ্টির ফোঁটা পড়ায় অনবরত শব্দ হচ্ছে, বাসার সাথে লাগানো পেয়ারা গাছটার বিশাল বড় ডালপালা গুলো চালের উপর চলে এসেছে বারবার সেগুলো বারি খাচ্ছে যার কারণে শব্দ...

শখের পাখি

শখের পাখি

লেখিকা-উম্মে কুলসুম সুবর্ণা এই তো সেদিন মেলা থেকে বাসার ছোট্ট ছেলেটা আমাকে কিনে এনেছিলো। তখন তো ছানা পাখি ছিলাম এখন বুড়ো হয়েছি। বাসায় মোট ছয়জন থাকে। আগে ভাবতাম দুই রুমের ক্ষুদ্র ফ্ল্যাট এ এত গুলো মানুষ কিভাবে থাকতে পারে। পরে বুঝলাম এই সব কিছু ছেলের বউয়ের চমৎকার। অনেক...

নীল কমলিনী

নীল কমলিনী

অনুগল্প: নীল কমলিনী লেখা: অনুষ্কা সাহা ঋতু . চন্দনের শেষ ফোঁটাটা দিয়েই মা ঝরঝর করে কেঁদে ফেললেন। ছোট বেলায় এমন কত সাজিয়েছেন আমাকে। তখন মুচকি মুচকি হাসতেন, আর আজ কাঁদছেন। মা টাও ভারি অদ্ভুত। আচ্ছা, তবে কি দুটো সাজের অর্থ ভিন্ন! কি জানি? . হঠাৎ শঙ্খ আর উলুধ্বনি ভেসে...

২ Comments

  1. Sabbir Ahmed

    Life colar phot e ato badha pore,jani na keno…..keno emn hosce amr shate…valo laga r valobasha same jinis na..Ata face, coto,boro dheke hoi na,borong er jonneh akta mon thaka dorkar……
    Neje ke poribor ton kore kew mohot hote pare na.
    Je kaj golo kaser manus k kosto dei sei kaj er kono grotoh nei,borong setai kora uchit je ta tumar kase ke happy rake..Its oke

    Reply
    • Sabbir Ahmed

      Missing

      Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *