শুকরিয়া জ্ঞাপন
প্রকাশিত: অগাস্ট ২১, ২০১৮
লেখকঃ

 70 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

#লেখিকাঃ জিন্নাত রিমা
.
ওহে রহিম, ওহে রহমান, এতটা নিষ্ঠুর তুমি!
টানা বর্ষণে ডুবিয়ে দিয়েছ ফসলি জমি।
দুইদিন ধরে খানাপিনা নাই আমারি ঘরে।
বউ ছেলেমেয়ে না খেয়ে রয়েছে পরে।
তুমি নাকি পালনকর্তা, তুমিই রিজিকদাতা।
তবে কেন অনাহারী মুখ দেখছি আমি পিতা।
বান্দা, হাসালে মোরে, অনাহারের কথা তুলিয়া ধরে।
এতটা বছর জুগিয়েছি অন্ন, শুকরিয়া করেছো কী ইবাদত করে?
প্রভাতে সূর্য ,রাত্রে চন্দ্র ,রোজই যে দিচ্ছে আলো ।
টানা বর্ষণের দোষ ধরেছো, আলো পেয়ে শুকরিয়া করেছো কী বলো?
বান্দা সুখে থাকলে, যাও মোরে ভুলে।
ক্ষীণ কষ্টে দোষ ধরো তুলে।
একিই তোমাদেরি স্বভাব?
ভুল করেছি প্রভু,সুখে থাকাকালীন তোমারে ভুলে।
দাও ক্ষমা করে, অণু সুখেও শুকরিয়া করিব দু’হাত তুলে।

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

১০ Comments

  1. HM TareQue

    বান্দার অযৌক্তিক অভিযোগে আল্লাহর যৌক্তিক জবাব দিয়ে সুন্দর করেই রচিত হয়ে এই কবিতাটি কবি জিন্নাত রিমার হাত ধরে।

    Reply
  2. Rabbi Hasan

    খুব ভালো লিখেছেন। এটা বাস্তব চিত্র। আমাদের সবার উচিত দুঃখে কষ্টে আল্লাহ তাআলার শুকরিয়া করা।

    Reply
    • Zinnat Rima

      -‘ধন্যবাদ।

      Reply
  3. Mahbub Alom

    বাহ্,চমৎকার।

    আসলেই আমরা মহান আল্লহর এতো নিয়ামত ভোগ করেও শুকরিয়া আদায় করি না।
    অথচ আমাদের উচিৎ আল্লাহর ছোট ছোট নিয়ামতের পর্যন্ত শুকরিয়া আদায় করা।

    Reply
    • Zinnat Rima

      -‘ধন্যবাদ।

      Reply
  4. আফরোজা আক্তার ইতি

    এক কথায় চমৎকার একটি কবিতা। খুব সুন্দর। আমরা আল্লাহর নিয়ামতেই বেঁচে থাকি, তার দেয়া রিজিকেই আমাদের ক্ষুধা নিবারণ হয়, তার রহমতেই আমরা ভালো থাকি,কিন্তু তখন তাঁকে স্মরণ করতে আমরা ভুলে যাই, শুকরিয়া জানানোর কথা মনে থাকে না। কিন্তু আল্লাহ আমাদেরকে পরীক্ষা করার জন্য একটু কষ্ট দিলেই আমাদের অভিযোগ শুরু করে দেই। তখন অভিমান করতে দেরি হয় না আমাদের। আল্লাহর প্রতিটি নিয়ামতের জন্য আমাদের শুকরিয়া জানানো উচিৎ। খুব সুন্দর লিখেছেন। ছন্দমিল ভালো ছিল।বানানও নির্ভুল।

    Reply
  5. Rahim Miah

    পিতা এর পর প্রশ্নবোধক চিহ্ন হবে
    কী-কি (কি আর কী এর ব্যবহার হয়তো আপনে জানেন না। কি ব্যবহার হয় হ্যাঁ কিংবা না করার ক্ষেত্রে। যেমন :শুকিয়ে করেছো

    কী ইবাদত করে। এইখানে হ্যাঁ কিংবা না বলতে বুঝানো হয়েছে, সেক্ষেত্রে কি হবে। কারণ কী ব্যবহার হয় উক্ত ঘটনা ব্যাখার করার ক্ষেত্রে। আরেকটা জায়গাতেও কি হবে। তবে কবিতা বেশ ভালো ছিল শুভ কামনা

    Reply
  6. Zinnat Rima

    -‘ধন্যবাদ।

    Reply
  7. Nahid Islam Rony

    মাশাআল্লাহ, সুন্দর লিখেছেন। আমরা মানুষরা বড়ই অকৃতজ্ঞ। আল্লাহর অসংখ্য নিয়ামতের শুকরিয়া না জানিয়ে বরং ক্ষণিকের দুঃখগুলোই বড় করে দেখি এবং আল্লাহকে দোষারোপ করি।
    তবে কবিতায় ক্রিয়াপদের চলিত ও সাধু রূপের মিশ্রণ করে ফেলেছেন। এইদিকে সতর্ক থাকতে হবে।
    পরে=পড়ে,
    শুভ কামনা রইলো। 🙂

    Reply
  8. Sajjad alam

    কী/কি ব্যাপারে ত্রুটি লক্ষণীয়।
    .
    তবে সবমিলে ভালো লেগেছে

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *