প্রতীক্ষা
প্রকাশিত: জানুয়ারী ১৯, ২০১৯
লেখকঃ

 133 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

আরাফাত তন্ময়

রাত্রি যখন গভীর হয় সকলে ঘুমায় আমি জেগে থাকি।
খোলা আকাশের বুকে নক্ষত্রের গায়ে লেখা রয়েছে কি-না তোমার নাম আমি খুঁজে খুঁজে দেখি।
আমি নীল জল, মরুভূমি, সাগর, পাহাড়
আকাশ-পাতাল সব তন্ন তন্ন করে খুঁজেছি;
আকাশের ওই সবচেয়ে উঁচু তারাটিকে পাথর চোখ মেলে দেখেছি
তুমি আছ কি-না!
তুমি আমার স্বপ্ন সমুদ্র
এখানে গাঁও শালিকেরা ডানা মেলে উড়ে যায়
পথ দেখায়, তোমাকে ডাকে।
তুমি স্মৃতি হয়ে জ্বলো এই বুকে
তুমি চিতা বহ্নিমান
হৃদয়ের প্রতিটি কম্পনে তুমি আছ বেগবান
তুমিই এক অনন্য নিয়তি আমার।
নিষ্পলক তাকিয়ে থাকি অসীম আকাশের দিকে
সুনীল সেই শূন্যতায় যদি পাই তোমার দেখা!
তুমি জেগে আছ আমার বুকে চির অম্লান
জ্বলন্ত নক্ষত্রের মতো।
বাদলের মাতাল করা বাতাসে
তুমি আসবে আমার কাছে
তোমার আগমনী অনুভাব করি,
আমি লিপ্ত হই তোমার আরাধনায়
বৃষ্টির তরল নিঃশ্বাসে
অবুঝ শিশুর মতো সরল বিশ্বাসে।
তুমি আমার স্মৃতির অঙ্গনে যতনে বেড়ে ওঠা রজনীগন্ধার একগুচ্ছ শুভ্র ডাঁটা,
রাতের অন্ধকারে আমার নিঃশ্বাসে
অহর্নিশ জেগে আছ তুমি
যুগ যুগ ধরে নিভৃত গোপনে;
তোমার কথাই যেন বলে ফাগুনের দখিনা বাতাস।
যে কথা মৌমাছির গুঞ্জরে নীরবে
যে কথা বাতাস বলে চুপিসারে
যে কথা তোমাকে আজও হয়নি বলা
সেই কথাই যেন শুধু সিম্ফনি হয়ে বাজে হৃদয়ে!
সমস্ত দ্বিধার দেয়াল ডিঙিয়ে তুমি আসবে
নীল সমুদ্রের তীর উজান পেরিয়ে
দুঃসাহসী নাবিকের মতো
তুমি আসবে জানি
আমার নিস্তব্ধ নিশীথের নিঃসঙ্গ উপত্যকায়।
এখানে ধীরে ধীরে গড়া প্রেমের স্তম্ভ জেগে আছে
একটি শাশ্বত
সূর্যের অনন্ত প্রতীক্ষায়….

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

৫ Comments

  1. আফরোজা আক্তার ইতি

    কি চমৎকার কবিতা! আবৃত্তি না করে পড়তে পারলাম না। মূলত এটাই লেখকের/কবির স্বার্থকতা যখন সে পাঠকের চিত্তাকর্ষণ করতে সফল হয়। কবিতাটি ছিল সেইরকম ধাঁচের। বেশকিছুক্ষণ ভাবের রেশ রয়ে গিয়েছিল।
    বানান নির্ভুল। উপস্থাপন এক কথায় চমৎকার। ভালো লেগেছে অনেক। কবিতাটি নামকরণে স্বার্থকতা পেয়েছে বলেই মনে হচ্ছে। শুভ কামনা অনেক।

    Reply
    • বুনোহাঁস

      আন্তরিক ধন্যবাদ প্রিয়

      Reply
  2. Halima tus sadia

    চমৎকার লেখনী।
    মনোমুগ্ধকর লেখা।

    পাঠিকা হয়ে মুগ্ধ হয়ে পড়লাম।

    প্রিয়জনের জন্য অপেক্ষা।
    কবে সে আসবে…
    এ অপেক্ষার প্রহর যেনো কাটে না।

    অনুভাব–অনুভোব

    বানানেও ভুল নেই বললেই চলে।

    শুভ কামনা রইলো।

    Reply
    • বুনোহাঁস

      অনুভাব অন্য অর্থে সঠিক। ধন্যবাদ আপনার বিশ্লেষণ মূলক মন্তব্যের জন্য।

      Reply
  3. Md Rahim Miah

    আছ-আছো(যেহেতু তুমি বলেছে)
    বাহ্ বেশ ভালো লিখেছেন। কারোর অপেক্ষা সত্যিই বেশ কষ্টের। তবে প্রিয় কবি কবিতার মাঝে অনেক লাইনে দাড়ি কিংবা কমা বসেনি যা বসানো জুরুরী ছিল। তবে পড়ে ভালোই লেগেছে আর অনেক অনেক শুভ কামনা রইল।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *