পাগল
প্রকাশিত: অক্টোবর ৯, ২০১৮
লেখকঃ

 94 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

শরিফুল ইসলাম

আরে ভাই,
পাগল কি স্বাদে হয়েছি!
দেখলি তো শুধু বাহিরি আবরণ,
খোলস টাই তো ভেদ করতে পারলি না?
আবার তুই কিনা বুঝবি দুঃখ ব্যথা!
এ দিকটায় দেখ!
বুকের ভেতর কত ব্যথা!
গেঞ্জির নীচেও দেইখা যা?
চামরা ভেদ করা কষ্টের কথা?
বোকা চাহুনিতে ভাবছিস কি?
ভাবছিস পাগলটা, বলে কি!
বলছে কে তা ভাবিস নি,
বলছি কি তা, সেটাই দেখ!
হাটে-গঞ্জে হাঁটি আমি,
রাস্তার দ্বারে ঘুমাই!
সেই ঘুমেতে শান্তি নেই
আছে শুধু বালাই!
জ্ঞানী তুমি বিজ্ঞ মানব,
তোমার কত ছলা!
দিনের বেলায় সাধু তুমি,
রাতের বেলায় দানব!
দেখি আমি আধার আলোয়,
তোমার কালো ছায়া!
হিংস্র থাবায় বশ করে নাও,
নরম দেহের উষ্ণ ছোয়া!
পাগল আমি দেখছি সবি,
চোখ বুঝিলেই কান্নার খেয়া!
ভাবি আমি খুব করে আজ,
বিদ্যা তোমায় দিল টা কি?
ময়লা জামার, ছেঁড়া শার্টে!
গল্প আছে ধূলার মত!
তার মাঝে যেই কষ্ট আছে?
সেই সুবাদে পাগল হওয়া!
আরে, আরে, যাচ্ছিস কোথায়?
আর কিছুটা শুনে যা,
শুনবি না তোদের কর্মগাথা?
সুশীল সমাজ করছে যা!
তোমরা সুশীল ব্যর্থ সবাই,
নাম ভাঙ্গিয়ে খাও!
নৈতিকতার ধার ধারো না,
আবার, বিজ্ঞ ভাব নাও!
পালাও! পালাও! পালিয়ে যাও!
মুখ লুকাবে কোথায়?
থু থু মারি তোমার মুখে,
নিকৃষ্ট মানব যেথায়!
পাগল আমি বলছি যাতা!
কান দিও না এথায়।
নয়তো আবার বলবে আমায়,
ভিনদেশী এক দালাল!!

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

৬ Comments

  1. Naeemul Islam Gulzar

    প্রথমে তুই দিয়ে শুরু।পরে তুমিতে নেমে এলেন…এটা কেমন না!
    এছাড়া ছড়ার বিষয়বস্তু চমৎকার।শুভকামনা♥

    Reply
  2. আফরোজা আক্তার ইতি

    আসলেই। আমরা তাদেরকে পাগল বলছি, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তারাই জানে কষ্ট কাকে বলে,দুঃখ কাকে বলে। এসব ভোগ করেই তারা কষ্টে পাগল হয়ে গেছে। তারা পাগল হয়েও উপলব্ধি করতে পেরেছে দুঃখ যন্ত্রণা, কত কষ্ট আহাজারি,ভালোর পিছনে কালোর মুখোশ। আর আমরা সুস্থ সজ্ঞানে থেকেও ভুল সঠিক নির্ধারণ করতে পারছি না।
    বানানে বেশ কিছু ভুল আছে তা সংশোধন করে দেই।
    চামরা- চামড়া।
    দ্বারে- ধারে।
    কর্মগাথা- কর্মগাঁথা।
    আধার- আঁধার।
    শুভ কামনা।

    Reply
  3. Tasnim Rime

    চামরা- চামড়া
    কর্মগাথা- কর্মগাঁথা
    আধার- আঁধার
    লেখার বিষয়বস্তু নির্ধারন সুন্দর ছিল। যদিও অামার কাছে এটা মোটেও ছড়া মনে হয় নি।

    Reply
  4. shahrulislamsayem@gmail.com

    প্লটটা ভিন্ন ছিল কিন্তু একটু বেশি বড় হয়ে গেছে, আর বানান ভুল……………’রাস্তার দ্বারে’ -‘রাস্তার ধারে’

    Reply
  5. Rifat

    ভালো লিখেছেন। তবে বানানের দিকে একটু নজর দেওয়া উচিৎ ছিল
    শুভ কামনা।

    Reply
  6. Halima tus sadia

    চমৎকার লেখনি।
    একজন বিকৃত মস্তিষ্ক মানুষ এমনিতে দেখা যায় তাদের এমন।কিন্তু তারাতো এক সময় ভালো মানুষ ছিলেন।
    সুস্থ মনের ছিলেন।
    হয়তো ভাগ্যক্রমে বিকৃত মস্কিষ্ক হয়ে যায়।তাদেরও দুঃখ,কষ্ট,যন্ত্রণা থাকে।কাউকে বলতে পারে না।
    বানানে ভুল আছে
    কর্মগাথা–কর্মগাঁথা
    চামরা–চামড়া
    আধার–আঁধার
    শুভ কামনা রইলো।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *