ফেরা
প্রকাশিত: নভেম্বর ১৫, ২০১৮
লেখকঃ

 60 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

ফেরা
নিশাত তাসনিম

আজ এই নিঝুম বৃষ্টি দিনে
লজ্জাবতি শিশির তোমার শরীর ছুঁতে চায়।
নক্ষত্রখচিত শূন্যতায় তুমি আসোনি
চলে গিয়েছো,
তবু বিদায় বলো নি।
তৃষ্ণার্ত আমি;
খুঁজে পেতে সাগরের অভিমান
গল্প জমাচ্ছি বর্ষার সাথে।
মাঝে মাঝে,
রাতের গভীরে চলে আসি।
মাতাল বৃষ্টির ফোঁটায় অগোছালো বাতাসে
তোমারর অখন্ড অবয়বের মতো
তুমুল আয়োজনের গল্প বলি।
তুমি ফিরে এসো অমিমাংসীত আলাপ নিয়ে।
আর;
ভুলে যাও,
যে অনিবার্য কারণবশত
তুমি চলে গিয়েছিলে।
তুমি ফিরে এসো,
এই ভরা পূর্নিমায় পায়ের মলের আওয়াজে
যখন প্রকৃতি বৃষ্টি মাতাল।
তুমি ফিরে এসো এমন পূর্নিমায়
যে পূর্নিমায় বৃষ্টি ঝরে।
শুধু বৃষ্টি রাতের অনুভবতায়
চুড়ির রিনিঝিনি শব্দ
আর,
কানের ঝুমকোর সাথে হাজার কথা শেষে
চোখের গভীরতার রচনা করো
বুনো বোবা রাত!!!

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

৪ Comments

  1. Halima tus sadia

    ভালো লাগলো।চমৎকার কবিতা।
    বানানেও ভুল নেই।
    কাউকে ফিরে আসার কাকুতি মিনতি।
    শুভ কামনা রইলো।

    Reply
  2. সুস্মিতা শশী

    বানানে ভুল নেই। চমৎকার ছিলো কবিতাটি।

    Reply
  3. অচেনা আমি

    আসসালামু আলাইকুম। কবিতাটা আমার কাছে মোটামুটি ভালো লেগেছে। তেমন একটা মুগ্ধ করতে পারেনি। কিছুটা গদ্য ছন্দে লেখা মনে হলো। বানানে কয়েকটা ভুল পেয়েছি আমি। নিচে সেগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করলাম :
    নক্ষত্রখচিত – নক্ষত্র খচিত
    বলো নি – বলোনি
    তোমারর – তোমার (টাইপিং মিসটেক)
    অখন্ড – অখণ্ড
    কারণবশত – কারণ বশত
    পূর্নিমায় – পূর্ণিমায় (মে বি)
    বুনো – বোনো (বুনো বলতে বন সম্পর্কিত বোঝায়। যেমন বুনো হাঁস)

    আগামীর জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা।

    Reply
  4. Md Rahim Miah

    চায়-চাই(নিজের বেলা ই হয়)
    নক্ষত্রখচিত -নক্ষত্র খচিত
    বলো নি-বলোনি
    তোমারর-তোমার
    কারণবসত-কারণ বসত
    পূর্নিমায় – পূর্ণিমায়

    কবিতাটা কিছুটা গদ্য কবিতার মতো লাগল। যাইহোক ভালো ছিল প্রিয়জনের পাবার আকুতি। শুভ কামনা রইল।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *