ধবল বক
প্রকাশিত: জানুয়ারী ১৩, ২০১৯
লেখকঃ

 115 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

সাব্বির আহমেদ বাবু

শিশির বিন্দু সমগ্রতায় আছে ছড়িয়ে
ধবল বক নেমে এসেছে কলমিলতার ঝোপে,
বিকেলের হলুদ আভায় ছিন্নভিন্ন কলমিলতার বক্ষ,
ভ্রুক্ষেপ করার মতো নেই কেউ; সন্তর্পণে শিশির বিন্দু মিশে গেল অতলে।
জলার কালচে শৈবাল ঢেউনৃত্যে ভেসে এলো কলমিলতার খুব কাছে,
বুঝেনি ধবল বক কেড়ে নিবে অনাগত ভ্রূণ
তীক্ষ্ণ নখের পরশে।
নিঃশেষে শৈবাল বুহ্য ভেঙ্গেচুরে ঠায় নিলো ধরনী বুকে।
শান্তির প্রতীক গায়ে মেখে ধবল বক
পেটপূজো শেষে আশ্রয় নিলো নারকেল বৃক্ষ মাঝে,
হৈ হৈ রই রই রবে মুখরিত সৃষ্টিকুল,
শান্তির বার্তায় বিরাজমান ধবল বক।
কলমিলতার দুঃখ গুলো শিশিরজলে মিশে যায়
একাকার হয়ে যায় কেউ দেখবার আগেই,
শৈবাল তার আপন বলয়ে ধীরে ধীরে
গড়ছে হারানো সাম্রাজ্য আবার আসবে বুকে আঁচড় দিতে ধবল বকে এই আশাতে।
হাজার বছর ধরে এই নিয়মে খেলা করে নিয়তি
চারিদিকে চিরদিন এই তো খেলা সৃষ্টি মাঝে,
তবুও তো দয়ার মাঝে আছে কিছু বেঁচে
হাজার বছর ধরে অন্ধকার রাত্তিরে মিশে।
স্নিগ্ধ কোমল পৃথিবী আলোড়িত পাতপতঙ্গ কোলাহলে,
শান্ত হতে হবে ব্রত নিয়ে নক্ষত্রপতির আরাধনা যে করে।
নগ্ন থামের উপর দাঁড়কাক কা কা জপে আপন সুরে,
সেই সুরে ঝরে পড়ে কত আক্ষেপ আর হারানো ব্যথার কথা।

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

৩ Comments

  1. আফরোজা আক্তার ইতি

    অসাধারণ! শব্দচয়ন আর উপস্থাপন এক কথায় মনোমুগ্ধকর। অসম্ভব সুন্দর করে আপনি কবিতাটা উপস্থাপন করেছেন যেন সবকিছুই চোখের সামনে ভেসে উঠল। বানানে ভুল পাই নি।
    অনেক শুভ কামনা জানাচ্ছি প্রতিযোগীকে।

    Reply
  2. Halina tus sadia

    চমৎকার লিখেছেন।
    ছন্দেরও ধারাবাহিকতা রয়েছে।

    তবে কবিতার মর্মার্থ অতোটা বুঝিনি।

    বানানেও ভুল নেই।

    অনেক শুভ কামনা রইলো।

    Reply
  3. Md Rahim Miah

    ঠায়-ঠাঁয়
    ধরনী-ধরণী
    দুঃখ গুলো- দুঃখগুলো
    বাহ্ বেশ চমৎকার লিখেছেন। কবিতার মাঝে অনেককিছু ফুটে উঠেছে। যেমন:ধবল বক কমলিতলার মাছ খেয়ে পেট বড়লো আর প্রকৃতির খেলা। তবে বানানে দিকে আগামীতে খেয়াল রাখবেন আশা করি আর অনেক অনেক শুভ কামনা রইল।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *