বোধ
প্রকাশিত: অগাস্ট ১৮, ২০১৮
লেখকঃ

 108 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখা :দেদিপ্ত সরকার

আমি কি মানুষ?
প্রশ্ন নিজের কাছে,
হুশ তবে আছে কি?
না আমি বেহুশ!
বোধ আছে তো আমার!
জীবন চলার পথে।
জগতের এই রঙ্গমঞ্চে,
মানুষ সাজে সবাই,
মানুষ রূপের মুখোশ পড়ে,
সমাজটাকে করছে জবাই।
মানুষের যে বড়ই অভাব,
এই জগতে,
অমানুষের সুস্থ স্বভাব,
চিনবে কিভাবে?
তাই তো মানুষ রূপি পিশাচকে,
চিনবো কেমনে!
মানুষ চিনতে পারবে তবে,
আগে নিজে মানুষ হলে।
মানুষ যদি হত সবাই বিভেদ যেত দুরে,
জরা জীর্ন থাকতো না কখনই,
এই ঘুনে ধরা সমাজে,
মানুষ মানুষে- হানাহানি,পাচার,
ধর্ষন,খুনোখুনি,
এই কালো মেঘ সরবে কবে
ঘটবে যেদিন শ্রেষ্ঠ জীবের মধ্য,
বিবেকের বোধদয়।

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

৭ Comments

  1. Halima tus sadia

    আমরা যদিও মানুষ নামে পরিচিত।তবে প্রকৃত মানুষ হতে পারিনি।জগতের রঙ্গমঞ্চে মানুষ ঠিকই সবাই সাজে।ভালো মানুষের বড় অভাব।মুখোশ পড়ে ভালো মানুষের আড়ালো ধর্ষণ, খুনোখুনি বন্ধ নেই।
    আর আগে নিজেকে ভালো হতে হবে।তবেই খারাপ মানুষকে চিনা সম্ভব।
    এই জগতে কতো রঙ্গের মানুষ।তাদেরকে চিনা বড় দ্বায়।
    যদিও মানুষের বিবেক আছে তবুও সঠিক কাজে লাগাচ্ছে না।সবাইকে বুঝার জ্ঞান দান করুক।
    ভালো লাগলো।

    দুরে–দূরে।
    শুভ কামনা।এগিয়ে যান।

    Reply
  2. আফরোজা আক্তার ইতি

    খুব সুন্দর একটি কবিতা।আসলেই আমাদের সমাজে সেই নরপশুগুলো ভালো মানুষের মুখোশ পড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে তাদের শনাক্ত করা কি চাট্টিখানি কথা? তারা আমাদের জীবন নরক বানিয়ে নিজেরা শান্তিতে থাকছে। এইসব বহুরূপীদের হাত থেকে আমরা নিস্তার চাই। ভালো লিখেছেন। বানানে ভুলগুলো সংশোধন করে দেই।
    দূরে হবে।
    আর শেষের দিকে ছন্দপতন ঘটেছে।

    Reply
  3. Rabbi Hasan

    খুব ভালো লিখেছেন। বানানের দিকে নজর রাখবেন। বেশ কয়েকটা বানান ভূল আছে।

    Reply
  4. Nahid Islam Rony

    জ্বী, ঠিক বলেছেন, কিছু খারাপ লোক ভাল মানুষের মুখোশ পড়ে আছে।
    ছন্দে একটু সমস্যা আছে। কিছু বানান,
    দূরে=দূরে
    জরা জীর্ন =জরাজীর্ণ
    মানুষ মানুষে=মানুষে মানুষে
    আবার “এই কালো মেঘ সরবে কবে” এইখানে একটা যতিচিহ্ন প্রয়োজন ছিল বিশেষ করে প্রশ্ন বোধক চিহ্ন।
    সামনে আরো ভাল লিখার প্রত্যাশা রইলো।

    Reply
  5. Rahim Miah

    দুরে-দূরে
    জীর্ন-জীর্ণ
    আর একটা লাইনে প্রশ্নবোধক চিহ্ন দেওয়ার দরকার ছিল। যাইহোক পড়ে ভালোই লেগেছে

    Reply
  6. Sajjad alam

    কিছু বানান ভুল,
    কিভাবে___ কীভাবে
    রূপি___ রূপী
    জরা জীর্ণ____জরাজীর্ণ
    দুরে___ দূরে
    ধর্ষন___ ধর্ষণ
    .
    নামকরণটা যথার্থ।
    কনসেপ্টটা সুন্দর ছিলো।
    বর্ণনার মধ্যে সাবলীলতা অাছে।
    .
    আমাদের প্রত্যেকের উচিত মানুষ হওয়া। শুধু মানুষই নয়, মানুষের মতো মানুষ হওয়া। তাহলেই হয়তো খুন রাহাজানি, ধর্ষণ ইত্যাদি হবে না।
    .
    সবমিলে ভালো লেগেছে।
    শুভ কামনা রইলো।

    Reply
  7. Mahbub Alom

    জগতের এই রঙ্গমঞ্চে,
    মানুষ সাজে সবাই,
    মানুষ রূপের মুখোশ পড়ে,
    সমাজটাকে করছে জবাই।

    অনেক ভালো লেগেছে।
    সমাজের এই মুখোশ পড়া লোকদের মুখোশ টেনে বের করতে হবে।
    তাহলেই শৃঙ্খলা আসবে।

    শুভকামনা রইলো।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *