আমি আঠারো এখন
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮
লেখকঃ

 89 বার দেখা হয়েছে

এই লেখক এর আরও লেখা পড়ুনঃ

(ছৈয়্যদ ইমাম)

আমি বিনিদ্র জাগরণ
তোর মরা মস্তিষ্কের শিহরণ!
আমি ঘুমন্ত শাপের বিষ
আমি বজ্রপাত অনর্গল
আমি তোর ভয়!আমি আঠারো এখন!
আমি সঙ্কুল হানি বিভেদ ভাঙি
আমি লাথি মারি তোর নোংরা প্রলোভন!
আমি রক্ত মাখি বুলেট ভেদি
এই বক্ষে অবিচল!
তোর শিষ্ট হাতে পিষ্ট হতে
তবে আয় তোকে নিমন্ত্রণ!
ভয় পাশনে,আমি আঠারো এখন।
আমি বিশ্বাস!আমি সত্য!
আমি হুংকার!আমি দীপ্ত!
আমি সীমাহীন দুর্গম অতল পরিধি
আমি তোর শৃঙ্খল ছেদি আড়ষ্ট!
আমি প্রজ্ঞা!আমি প্রতিজ্ঞা!
আমি ভাই বা কারো বোন
আমি রক্তের বুকে আস্তা।
আমি ন্যায্য আমি ভিত্তি
আমি অভাগার হাতে শক্তি!
তবে মার যতো পার,বাকরুদ্ধ অবিচার
আমি আগোয়ান
আমি আঠারো!আমি শহীদের সন্তান।
আমি মস্তক আমি নূর
আমি নম্র আমি সূর
আমি সময়ের ডাকে বিস্ময় রেখে
দেশ গড়ি এক মজদুর!
আমি সিস্টেম! তোর কালপ্রিট
আমি ঝঞ্ঝার এক সৈনিক!
যতো পার তবে মার
আমি হাজার বিহ্বল
এ সাহস বিধাতার
আমায় রুখবে কেরে বল?
আমি দুর্বার আমি প্রত্যয়
আমি বাঙালীর শেষ সঞ্চয়
নিবি নে কত জন?
আজ নিজেরে দিবো বিসর্জন!
ভুলিসনা..
আমরা আঠারো এখন।।

সম্পর্কিত পোস্ট

তুলসী বনের বাঘ

তুলসী বনের বাঘ --আল-মুনতাসির। চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! ছদ্মবেশে ছড়িয়ে দিলো বিষম বিষের নাগ। ইচ্ছে করে কামড় খেলে, ভরলে হৃদয় বিষের নীলে কী করে আর দেখবে প্রিয় কৃষ্ণচুড়ার বাগ ? চিনলে নাকো তাকে সে যে তুলসী বনের বাঘ ! চোখে তোমার বিষের তেজে পর্দা এলো নেমে, জগত...

ভালোবাসা রং বদলায়

: ভালোবাসা রং বদলায় লেখা: অদ্রিতা জান্নাত ছোট মেয়েটা খুব করে কেঁদে কেঁদে অনুরোধ করেছিল আমি যেন একটি হলেও তার কাছ থেকে ফুল কিনে নেই, ঠিক যতবার আমি তাকে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিচ্ছিলাম সে যেন ঠিক ততটাই আমার পিছু ছুটতে লাগল। আচ্ছা, এই যে শিশুটা যে কিছু টাকার বিনিময়ে আমাকে...

গোপন আর্তনাদ

কবিতা - গোপন আর্তনাদ #জয়নাল_আবেদীন মনে পড়ে কাজল চোখে মুগ্ধ করে রাখতে আমায়। কখনো নির্মল হাসিতে ভরিয়ে দিতে চারপাশ। ভুলে গেছো সেদিন ঘাটের পাশে নূপুর পায়ে নৃত্যের তালে এসেছিলে। লাল শাড়িটা এলোমেলো জড়িয়ে, মুখটা কেমন গম্ভীর ও করুণ দেখেছিলাম। বারবার আকাশে মেঘের গর্জন, বৃষ্টির...

১১ Comments

  1. Nipa Ahsan

    অসাধারণ লেখা! ঠিক যেন বিদ্রোহী কবির ঝংকার খুঁজে পেলাম লেখনী তে,,,, <3

    Reply
    • Syed Imama

      ধন্যবাদ 🙂

      Reply
  2. আখলাকুর রহমান

    ভুলগুলো দেখে নিন।

    শাপের – সাপের

    পাশনে – পাসনে

    আগোয়ান – আগুয়ান

    সূর – সুর

    অসাধারণ কবিতা।
    বিপ্লবী ভাব ছিল লেখার মাঝে।
    পরবর্তীতে আরও ভালো লেখা আশা করছি।
    শুভেচ্ছা রইল আপনার জন্য।

    Reply
    • আরাফাত তন্ময়

      শাপ শব্দটিও কিন্তু ভুল নয়! অভিশাপ অর্থে বুঝায়।

      Reply
    • Syed Imam

      ধন্যবাদ ভাইয়া। তাড়াহুড়োটা বেশি ছিলো একটু।নিশ্চয়ই পরেরবার ভাল কিছু লিখবো।প্রবাসী ব্যস্ততায় সময়টা ঠিকঠাক পাইনা ভাইয়া তায় একটু সমস্যা হয়।

      Reply
  3. আফরোজা আক্তার ইতি

    বাহ! দারুণ সুন্দর একটি বিদ্রোহী কবিতা! পড়ে মনে হচ্ছিল, ঠিক যেন “আঠারো বছর বয়স” কবিতাটি পড়ছি। কবিতার প্রতিটি চরণে লেখকের সযত্নে মনোভাব ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। প্রতিটি চরণেই উদ্যম, যৌবন-শক্তির, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর প্রেরণা ফুটে উঠেছে।
    ছন্দমিল দিয়ে সুন্দর একটি কবিতা। বানানে খুব বেশি ভুল নেই।
    শাপের-সাপের।
    পাশনে- পাসনে।
    শুভ কামনা রইল।

    Reply
    • Syed Imam

      ধন্যবাদ আপু।

      Reply
  4. আরাফাত তন্ময়

    শব্দটা প্রত্যয়ী হবে। একটা শব্দ যখন আনবেন তখন এর ব্যবহারিক অর্থ অবশ্যই মাথায় রাখবেন। অত্যন্ত বিদ্রোহের ঝংকার পেলাম। ভালো একটা বিষয় নিয়ে লিখেছেন। এমন লেখকের প্রতি শ্রদ্ধা বেড়ে যায় অনেক।
    শুভ কামনা রইলো।

    Reply
  5. Syed Imam

    ধন্যবাদ ভাইয়া। তাড়াহুড়োটা বেশি ছিলো একটু।নিশ্চয়ই পরেরবার ভাল কিছু লিখবো।প্রবাসী ব্যস্ততায় সময়টা ঠিকঠাক পাইনা ভাইয়া তায় একটু সমস্যা হয়।

    Reply
  6. Halima tus sadia

    অসাধারণ কবিতা।
    কবিতায় বিদ্রোহী ভাব ফুটে উঠেছে।
    আঠারো বয়সটাইতো তরুণদের জন্য দুর্বার গতির মতো।
    প্রতিটি চরণে তরুণদের অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর ভাবমূর্তিও ফুটে উঠছে।এ যেনো তরুণদের নতুন পথে চলার এক উদ্যেম।
    আমি দুর্বার,আমি প্রত্যয়।
    বেশ ভালো লাগল।
    বানানে কিছু ভুল আছে

    শাপের-সাপের
    শুভ কামনা রইলো।

    Reply
  7. মাহফুজা সালওয়া

    সুকান্তের পরে দ্বিতীয় আঠারো নিয়ে এলেন আপনি।
    ভীষণ ভালো লেগেছে।
    বিদ্রোহী ঝংকার ছিলো বেশ।
    কবিতার মাঝে তৃপ্তি ছিলো।
    চর্চা চালিয়ে যাবেন।
    শুভকামনা।।

    Reply

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *